সালিশি সভা ডেকে প্রমাণ ছাড়াই এক যুবককে চোর অপবাদ দিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠল পুরাতন বনগাঁ কালপুরে

https://youtu.be/IrgJWLuH8qA

বনগাঁ থানা এলাকার পুরাতন বনগাঁর গনেশ হালদারের রাইস মিলে কাজ করতেন গাইঘাটা থানা এলাকার খেদা পাড়ার বাসিন্দা গোলক শিকদার নামে এক যুবক। অভিযোগ শুক্রবার দুপুরে গনেশ হালদার এর রাইস মিল থেকে ৮০ হাজার টাকা খোয়া যায় তখন গোলক ও আরো এক কর্মচারী রাইস মিলে কাজ করছিলেন। তখন গোলককে দোকানের মালিক গনেশ হালদার তার ছেলে সহ কয়েকজন মিলে গোলক শিকদারকে বেধড়ক মারধর করেl তাকে ইলেকট্রিক শক দেওয়া হয় বাঁশ,হাতুড়ি দিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ করেন গোলক। পরবর্তীতে পরিবারের পক্ষ থেকে গোলককে গুরুতর আহত অবস্থায় বনগাঁ মহাকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং বনগাঁ থানায় রাইস মিলের মালিক গনেশ হালদার এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়।গনেশ হালদার এর স্ত্রী পূর্ণিমা হালদার বাঁশ হাতুড়ি দিয়ে মারধর ও ইলেকট্রিক শক দেওয়ার কথা সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন। তিনি জানান,ওই যুবককে মারধর করা হয়েছে এবং সে টাকা নিয়েছে বলে স্বীকার করেছে বলে দাবি করেন।
অন্যদিকে শুক্রবার রাতে স্থানীয় কালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল কংগ্রেসের উপপ্রধান হিমাংশু মন্ডলের উপস্থিতিতে আহত যুবকের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একটি সালিশি সভা করা হয় । সালিশি সভার কথা স্বীকার করে নিয়ে উপপ্রধান সালিশি সভায় উপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছেন।আহত যুবক গোলক শিকদারের পরিবারের পক্ষ থেকে গোলকের নির্দোষ দাবি করে এই ঘটনার সঠিক বিচারের দাবি তুলেছেন.

Covid

Co