এক যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা সোদপুর নাটাগর পঞ্চাননতলা এলাকায়

বেশ কয়েক বছর ধরেই চলছিল সাংসারিক অশান্তি, তার মাঝেই নেমে আসে লকডাউনের অভিশাপ, যার ফলে কাজ হারায় নাটাগড় পঞ্চাননতলার বাসিন্দা বছর চল্লিশের গৌতম সেনগুপ্ত। যার পরিণামে শেষপর্যন্ত গলায় অ্যাসিড ঢেলে মৃত্যু বেছে নেয় হতভাগ্য গৌতম। আর তারপরেই শুরু হয়েছে অস্বাভাবিক ওই মৃত্যু নিয়ে টানাপোড়েন। মৃতের মা দিপালী সেনগুপ্তের অভিযোগ, তার ছেলের স্ত্রীর অত্যাচারে তিনি বাড়িছাড়া দীর্ঘদিন ধরে, ছেলের মৃত্যুর খবর পেয়েই তিনি এসেছেন। পাশাপাশি ওই এলাকার বাসিন্দাদের সংগঠনের সম্পাদক দীপঙ্কর মুন্সি বলেন, তিনি অনেকবার চেষ্টা করেছেন মৃতের বাড়ির সাংসারিক অশান্তি মেটাতে, পারেন নি। আর যার দিকে সব অভিযোগের আঙুল, মৃতের স্ত্রী কাজল সেনগুপ্ত তুললেন এক মারাত্মক অভিযোগ, জানালেন, তার শ্বশুরের মৃত্যুর পর থেকে শুরু হয়েছে তাদের বাড়ি বিক্রি করার চক্রান্ত। যার জন্য তার শাশুড়ি ও মামার বাড়ির লোকজনেরা রোজ ফোনে হুমকি দিত গৌতমকে। একদিকে হঠাৎ করে বেকারত্ব, অন্যদিকে বাড়ি বিক্রি করে দেবার জন্যে হুমকি সহ্য করতে না পেরে আত্মঘাতী হয়েছে তার স্বামী।

https://youtu.be/2K_1v4JQmAU

Covid

Co