ক্যারাটে প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের জন্য সচেতনতার মুর্শিদাবাদে

বর্তমান সামাজিক পরিস্থিতিতে আত্মরক্ষার্থে ক্যারাট শিক্ষা অত্যন্ত জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে ক্যারাটে শেখা শুধু আত্মরক্ষার জন্যই নয়, সুস্থ থাকার জন্যও দরকার, কারণ এটা শরীর এবং মনের সহনশীলতা ও নমনীয়তা বৃদ্ধি করে।ক্যারাটের অন্যতম মূলধন হলো নিয়মানুবর্তিতা,যা ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনে এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে সাহায্য করে। বর্তমানে আত্মরক্ষার জন্য মার্শাল আর্ট বা ক্যারাটের মতো শারীরিক কৌশল হলো মেয়েদের সুরক্ষার জন্য শক্ত একটি হাতিয়ার। ফলে ক্যারাটে প্রশিক্ষণের প্রতি উৎসাহ দিন দিন বাড়ছে। ৪ বছরের শিশু থেকে শুরু করে যেকোনো বয়সের মানুষই এটা শিখতে পারে। ক্যারাটের আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, এটি আত্মরক্ষার পাশাপাশি একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ গেম।ফুটবল, ক্রিকেট, টেনিস, বক্সিং ইত্যাদির মতো ক্যারাটেও একটা খেলা যার সরকার অনুমোদিত ফেডারেশন রয়েছে, যার মাধ্যমে সারা বছর দেশে এবং দেশের বাইরে অর্থাৎ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরে বিভিন্ন টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। সুতরাং খেলোয়াড় হিসেবেও নিজেকে বিশ্বের বুকে তুলে ধরতে ক্যারাটে হলো একটি অন্যতম মাধ্যম। তবে বিভিন্ন ভুয়ো ক্যারাটে প্রশিক্ষণ গড়ে ওঠার কারণে চারিদিকে বিভ্রান্ত হচ্ছে অভিভাবকেরা। তাই ক্যারাটে শিখতে আগ্রহী ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকদের সচেতন করতে ও সঠিক প্রতিষ্ঠানগুলি সম্পর্কে তথ্য দিতে এদিন একটি সাংবাদিক সম্মেলন করা হয় মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে। বহরমপুর খাগড়া জিটিআই স্কুলে মুর্শিদাবাদ ক্যারাটে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে জানানো হয় ক্যারাটে প্রশিক্ষণে আগ্রহীরা যেন সঠিক প্রতিষ্ঠান যোগাযোগ করেন না হলে ছাত্রছাত্রীরা সঠিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে।

https://youtu.be/uniNWyGUTV4

Covid

Co