পশ্চিমবঙ্গ সরকারের লকডাউন সময়ের নতুন শিক্ষা প্রচেষ্টা ‘বাংলার শিক্ষা দূরাভাষে’

লকডাউন এরমধ্যে শিক্ষাব্যবস্থার হাল একেবারেই শোচনীয়। অনলাইন ক্লাস চললেও অধিকাংশ শিক্ষক-শিক্ষিকার দাবি কোনভাবেই অনলাইন ক্লাস সঠিক মূল্যায়নে পড়ানো সম্ভব নয়।
কিন্তু বহু ছাত্রছাত্রীকে বিস্তর অসুবিধার মুখে পড়তে হচ্ছে অনলাইন ক্লাস করতে গিয়ে। প্রত্যন্ত গ্রাম এলাকায় অনেক জায়গাতেই ইন্টারনেট লাইন অত্যন্ত দুর্বল অথবা নেট সংযোগই নেই। আবার কোন কোন পড়ুয়ার আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে একটি স্মার্টফোন কেনাও সম্ভব নয়। বলাবাহুল্য লকডাউন এবং আমফান পরবর্তী অবস্থায় রাজ্যের মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থাও সংকটের।
এমতাবস্থায় এই সমস্ত পড়ুয়াদের অনলাইন ক্লাস করা একেবারেই অসম্ভব।
এইসব কথা মাথায় রেখেই আগামী অগাস্টের গোড়াতেই লকডাউন এর মধ্যে পড়ুয়াদের জন্য আসতে চলেছে নতুন প্রচেষ্টা ‘বাংলার শিক্ষা দূরাভাষে’।
বিকাশ ভবন সূত্রে জানা গেছে বাংলার শিক্ষা দূরাভাষে স্মার্টফোনের দরকার নেই, ফলে পড়ুয়ার হাতে সস্তার একটা ফোন থাকলেই চলবে। দরকার পড়বে না ইন্টারনেট ব্যবস্থার ও। একটি টোল ফ্রি নম্বরে ফোন করে শিক্ষকদের কাছ থেকে পড়ুয়ারা পড়া বুঝে নিতে পারবেন। এই সুবিধা এখন পাবে শুধুমাত্র নবম এবং দশম শ্রেণীর পড়ুয়ারা। কিছুদিন পর থেকে প্রাথমিক স্তরের ছাত্র ছাত্রী থেকে শুরু করে সমস্ত শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরাই এই সুবিধা পাবে।
পাঠ্যক্রম কমিটির চেয়ারম্যান অভীক মজুমদার এই প্রকল্প নিয়ে খুবই আশাবাদী ‌। তিনি জানান ১০০০০ শিক্ষক-শিক্ষিকাকে এই ব্যবস্থায় যুক্ত করা হয়েছে। যে সমস্ত সম্ভাব্য সমস্যার কথা উঠে আসছে সেগুলোর সমাধান করার চেষ্টা করা হচ্ছে।
তাদের একমাত্র লক্ষ্য রাজ্যের সমস্ত পড়ুয়া যাতে ফ্রি নম্বরে ফোন করে পড়াশোনার সুবিধা পায়।

ফাইলচিত্র 

Covid

Co