করোনা বিধি উড়িয়ে মুখে সামান্য মাস্ক না পড়েই ছট্ পূজার ব্যবস্থাপনা তদারকি করে গেলেন আসানসোল কর্পোরেশন বোর্ডের চেয়ারম্যান জিতেন্দ্র কুমার তিওয়ারী

দুর্গাপুজো, কালীপুজো, জগদ্ধাত্রী পুজো এক সারিতে ফেলে ছট্ পুজোতে এবার নানান ধরনের বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে মহামান্য আদালত, যাতে পরিষ্কার বলা আছে, একই ঘাটে বেশী মানুষের জমায়েত করা যাবে না, মানতে হবে করোনা প্রতিরোধে সমস্ত রকম বিধি-নিষেধ, যার মধ্যে অন্যতম হলো মুখ মাস্কে ঢাকা। আর আজ কুলটি শহরের প্রধান ছট্ পুজোর ঘাট,কুলটি ছোট ঘাটে ছট্ পুজোর প্রস্তুতির পরিদর্শনে এলেন স্বয়ং আসানসোল মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান জিতেন্দ্র কুমার তিওয়ারী। সবচাইতে আশ্চর্যের বিষয় হলো আসানসোলের মহানগরিকই ভাঙলেন আদালতের নির্দেশ। পরিষদবর্গ পরিবেষ্টিত হয়ে, মাল্যদানের ভূষিত মহানগরিককে দেখা গেলো মাস্কহীন মুখেই, এমনকি তাকে ঘিরে যে ভিড়, সেখানেও কারোর মুখেই ছিলোনা মাস্ক।যেখানে শহরের মহানাগরিকই আদালতের রায়কে মান্যতা দিতে প্রস্তুত নন, নিন্দুকের আশঙ্কা, ছট্ পুজোর দিন সেখানে কি কান্ড ঘটে সেটা নিয়েই। তবে ছট পুজো নিয়েও অবশ্য মাস্কহীন নাগরিকের অভিযোগ, বিহারে যেভাবে বিজেপি সরকার আটকে দিচ্ছে ছট্ পুজোর আয়োজন, বাংলাতেও কেন্দ্রীয় সরকারী দপ্তরগুলি অসহযোগিতা করছে ছট্ পুজোর আয়োজনে।
আমরা যে ছবি দেখলাম আসানসোল মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান জিতেন্দ্র কুমার তিওয়ারীর ছোট-ঘাট পরিদর্শনে, আর যে কথা শুনলাম তার মুখ থেকে, তাতে কি বাঙালী-অবাঙালী বিভাজনের একটা সূক্ষ্ম ইঙ্গিত ধরা পড়লো না? অন্তত নিন্দুকের তো এটাই প্রশ্ন।

https://youtu.be/BuKuA8h_Rsc

Covid

Co