করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই হবে শহরের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বড়দিনের উৎসব।

শহরের শ্রেষ্ঠ উৎসবের মরশুম চলে গিয়েছে ক’মাস আগেই।শহরবাসী চোখের জলে বিদায় জানিয়েছে তাদের মা কে। কিন্তু শহরের ওপর এক উৎসবের মরশুম আসন্ন। শীতের আমেজে বড়দিন এবং নতুন বছরের আগমনী ধুমধাম করে পালন করা হয় কলকাতার বুকে।কিন্তু চলতি বছরের চিত্রটা একেবারে অন্যরকম।করোনা অতিমারীর জেরে বাতিল করা হয়েছে সবকিছুই। আর সেই কারণেই জল্পনা তৈরী হয়েছিলো আসন্ন বড়দিনের উৎসব নিয়ে।
জল্পনার শেষ, সমস্ত রকমের করোনা বিধি মেনে অ্যালেন পার্কে বড়দিনের উৎসব পালন করা হবে। তবে উৎসবের মুলে যে খাবারের স্টল থাকে প্রতি বছর সেই ষ্টল এবার রাখা হচ্ছেনা। মূলত করোনা অতিমারীর কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।শুধুমাত্র অ্যালেন পার্ক নয় , পার্কস্ট্রিট এর ফুটপাথে যে সমস্ত খাবারের ষ্টল বসে সেগুলোর ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।
ক্রিসমাস কার্নিভালের আয়োজকেরা জানিয়েছে,অ্যালেন পার্কে প্রতিদিন আড়াই ঘন্টা মতো অনুষ্ঠান হবে আগের মতো ১০ দিন ধরে। তবে অনুষ্ঠান প্রাঙ্গনে থাকতে পারবে মাত্র ১৫০ জন, তার করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে।প্রথম দিন অর্থাৎ ২১ ডিসেম্বর মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ক্রিসমাস ট্রিতে আলো জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের উধবধন করবে তার পর থেকে ৩টি ভাগে ভাগ হয়ে অনুষ্ঠান হবে। কার্নিভাল কমিটি,কলকাতা পুলিশ এবং পর্যটন দপ্তর এর অধীনে সব রকমের অনুষ্ঠান পরিচালিত হবে।

Covid

Co