বিতর্ক শুরু হলো তেরঙ্গা মাস্ক বিক্রি ঘিরে।

করণা পরিস্থিতিতে মাস্ক এখন আমাদের সবসময়ের সঙ্গী। বেরোনোর সময় মনে করে মাস্ক নেওয়াটা এখন ‘নিউ নর্মাল’। দেখা গেছে সার্জিক্যাল, রেসপিরেটরি মাস্ক ছাড়াও এখন বাজারে এসেছে নতুন প্রিন্টেড মাস্ক।
এবার সেই প্রিন্টেড মাস্কের মধ্যেই প্রিন্ট করা হলো তেরঙ্গা , মাঝে অশোক চক্র।
বারাসাত হরিতলা মোড় এবং আশেপাশের বাজারে বিক্রি হচ্ছিল এই মাস্ক। কিন্তু মাস্কগুলি একবার ব্যবহারযোগ্য অর্থাৎ ব্যবহার করে সেগুলো ফেলে দিতে হবে। ইতিমধ্যেই বারাসাতের রাস্তাঘাটে যত্রতত্র পড়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে তেরঙ্গা মাস্ক গুলিকে। এই নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।


বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের বক্তব্য, এতে জাতীয় পতাকার এবং প্রতীকের অবমাননা হচ্ছে।
এরপরই নড়েচড়ে বসেছে বারাসাত পৌরসভা।
পৌরসভার প্রশাসক মন্দির চেয়ারম্যান সুনীল মুখোপাধ্যায় স্বয়ং বাজারে যান এবং যে সমস্ত দোকানে মাস্ক বিক্রি হচ্ছিল তাদের জানিয়ে দেন এই মাস্ক আর বিক্রি করা যাবে না। এরপরেও যদি বিক্রি হয় তাহলে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Covid

Co