৫ বছরের নিচের খুদেদের পড়াতে হবেনা মাস্ক, মাস্ক সম্পর্কিত একটি নির্দেশিকা জারি করে জানালো হু।

বেশ কয়েকমাস আগেই ৫জুন হু তরফে একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল।সেখানে বলা হয়েছিল, ২ বছরের কম বয়সীদের মাস্ক পোড়ানোর কোনো দরকার নেই। এরপর বেশ কিছুমাস অভিজ্ঞতার পর এদিন একটি নতুন গাইডলাইন প্রকাশ করলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। নির্দেশিকা বা গাইডলিনটিতে উল্লেখযোগ্যভাবে বলা হয়েছে, ৫ বছরের নিচে শিশুদের মাস্ক পড়ার কোনো প্রয়োজন নেই।এছাড়া একটু বড়ো ৬-১১ বছর শিশুদের ক্ষেত্রে প্রয়োজন বুঝে মাস্ক পড়াতে হবে।
পাশাপাশি বলা হয়েছে, স্বাস্থকর্মী, কো-মরবিডিটি আছে এমন ব্যক্তি বা ইমিউনিটি কম এমন ব্যক্তিদের ছাড়া সাধারণ মানুষের সাধারণ মাস্ক পড়লেও হবে। এছাড়াও বলা হয়েছে-
➤ কথা বলার সময় কোনোভাবেই মাস্ক খোলা যাবেনা।
➤ শরীরচর্চা করার সময় মাস্ক পরে থাকা উচিত নয়।
➤ আজকাল রাস্তাঘাটে প্রায়শই দেখা যায় মাস্ক মুখে না থেকে কানে না গলায় ঝুলছে , সেটিও ভুল। মাস্ক কোনোভাবেই কানে বা গলায় ঝুলিয়ে রাস্তায় ঘোরা যাবেনা।
➤ মাস্কের সামনের অংশ যত কম সম্ভব স্পর্শ যায় ততই ভালো।
➤ ফেসশিল্ড কখনোই মাস্কের বিকল্প হতে পারেনা।ফেসশিল্ড শুধুমাত্র চোখের মাধ্যমে সংক্রমণ ঠেকাতে সাহায্য করে।
➤ শারীরিক দূরত্ববিধি মানা সম্ভব নয় এমন জায়গায় মাস্ক পড়তেই হবে।
➤ একবার ব্যবহার করা যায় এমন মাস্ক একবারই ব্যবহার করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।
➤ যে সমস্ত মাস্ক একবারের বেশি ব্যবহার করা যায় সেগুলিকে তৎক্ষণাৎ কাচতে না হলে সেটিকে এয়ারটাইট প্যাকেটে ভোরে রাখতে হবে।
➤ ডিটারজেন্ট এ ব্যবহার করা মাস্ক ধুয়ে সেটিকে গরম জলে ফুটিয়ে নিতে হবে।

Covid

Co