ভূঁয়ো পরিচয়ে রক্ত নিতে এসে অশোকনগরে গ্রেপ্তার ৭, চাঞ্চল্য রক্তদাতাদের মধ্যে

সেই মার্চ মাসে লকডাউন শুরুর থেকে এলাকার সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াবার কাজ করে আসছে অশোকনগর পৌরসভা এলাকার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাকপুল এলাকার কিছু যুবক যুবতীর মিলিত সংগঠন ‘দিগন্তের দিশারী’। স্থানীয় ভাবে জানা গেছে আমফানের পরেও তারা যথেষ্ট সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে। এবার তারা উদ্যোগ নিয়েছিল রাজ্যের ব্লাড ব্যাঙ্ক গুলিতে রক্ত সংকট মেটাতে রক্তদান শিবির আয়োজন করার। সেই মত তাদের সাথে যোগাযোগ হয় কলকাতার ওম ব্লাড ব্যাংক নামের একটি বেসরকারি সংস্থার সাথে। শীততাপ নিয়ন্ত্রিত বিশেষ বাস নিয়ে রক্ত সংগ্রহ করতে হাজির হয় ও ব্লাড ব্যাংকের সাতজন কর্মী, শুরু হয় রক্তদান। ২৮জন রক্ত দেবার পর উদ্যোক্তাদের সন্দেহ হয় রক্ত নিতে আসা কর্মীদের আচরণে। এরপর জিজ্ঞাসাবাদ করতেই ঝুলি থেকে বার হয়ে আসে বিড়াল। দেখা যায় যে চিকিৎসক ব্লাড ব্যাংকের সাথে এসেছেন, তিনি আদৌ চিকিৎসক নন। রক্ত সংগ্রহ কোন অনুমতি পত্রও নেই তথাকথিত ব্লাড ব্যাংক কর্মীদের কাছে। বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় এলাকায়। খবর পেয়ে ছুটে আসে অশোকনগর থানার পুলিশ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ আটক করে নিয়ে যায় শান্তনু মন্ডল নামের ওই ভুয়ো পরিচয়ের চিকিৎসকসহ রক্ত সংগ্রহ কারী অন্য ছয়জনকে। গভীর রাত পর্যন্ত রক্ত সংগ্রহের কোন অনুমতি পত্র না দেখাতে পারায় অশোকনগর থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে রক্ত সংগ্রহ করতে আসা সাতজনকে। আর পুলিশের অনুমতি না নিয়ে শিবির আয়োজন করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২ উদ্যোক্তাকে।

https://youtu.be/avmMFwVes5s

Covid

Co