নবান্ন থেকে আলিমুদ্দিন- করনা সতর্কতা দুই দলেই।

বঙ্গে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করো না আক্রান্তের সংখ্যা। এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে রাজ্যে করণা আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬,৭৫২ ছাড়িয়েছে। এই অবস্থায় করণা ঢুকে পড়েছে রাজনৈতিক দলগুলির অন্দরমহলেও।
সিপিআইএম এর শ্যামল চক্রবর্তী , মোহাম্মদ সেলিমের করনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। শ্যামল বাবু প্রয়াত হয়েছেন বৃহস্পতিবার, যদিও মোহাম্মদ সেলিমের অবস্থা স্থিতিশীল।
এই পরিপ্রেক্ষিতে অনলাইন বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য জুলাই মাসের শেষদিকে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট এর রাজ্য দপ্তরে হাজির হয়েছিলেন সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা। তারপরেই দুই সদস্যের কোভিদ রিপোর্ট পজেটিভ আশায় সেই বৈঠকে উপস্থিত নেতাকর্মীদের করো না পরীক্ষা করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।


অন্যদিকে শাসক শিবিরে একের পর এক আক্রান্ত হচ্ছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। সোমেন বাবুর দেহ বিধানসভায় যেদিন আনা হয়েছিল উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল বিধায়ক জটু লাহিড়ী। তার পরেই তিনি করোনা আক্রান্ত। এই অবস্থায় যারা সেদিন উপস্থিত ছিলেন তাদের সকলকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়।
সূত্রের খবর আগামী সোমবার পর্যন্ত এই কারণে বিধানসভার একাংশের অফিস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


অবশ্য এর মধ্যেই সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির দুজন নেত্রীর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে তাদের উপসর্গ নেই তারা বাড়িতে নিভৃত বাসে আছেন। সিপিএম নেতৃত্বের বক্তব্য অহেতুক বাড়তি আতঙ্কের কোনো কারণ নেই।

Covid

Co