লালু প্রসাদ যাদবের শারীরিক অবস্থা নিয়ে আশংকা প্রকাশ করলেন চিকিৎসকেরা।

আরজেডি এর অন্যতম প্রবীণ নেতা লালু প্রাসাদ যাদবের নাম জড়িয়ে পড়েছিল পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায়। এরপর দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ২০১৭ সালেই আত্মসমর্পণ করে লালু প্রসাদ। এরপরেই কয়েকমাসের মাথায় ২০১৮ সালের ৩০ আগস্ট ওনাকে ভর্তি করা হয় রিমসে হাসপাতালে। সেই থেকে আজ পর্যন্ত ক্রমাগত শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে লালুজির
লালু প্রসাদের চিকিৎসক উমেশ যাদব জানিয়েছে, লালুজির কিডনি মাত্র ২৫% কাজ করছে। এই অবস্থায় কখন শরীরের অবস্থা কি হয় তা বলা কঠিন বলে জানিয়েছেন তিনি। যে কোনো সময়ে কিডনির অবস্থা আরো খারাপ হতে পারে বলে। অন্য হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হলেও অবস্থার কতটা উন্নতি হবে তা বলা মুশকিল। কিন্তু আদৌ অন্য কোনো হাসপাতালে ভর্তি বা স্থানান্তরিত করা সম্ভব কিনা তা ঠিক করবে আদালত এবং সরকার। তবে এখনো পর্যন্ত আদালত তরফে কিছুই জানানো হয়নি।
ইতিমধ্যেই লালুর জামিনের আর্জি করা হয়েছে , ঝাড়খন্ড হাইকোর্ট এই বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। ২০২১ সালের ২২ জানুয়ারী পর্যন্ত সিদ্ধান্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আদালত।

Covid

Co