মাধ্যমিকের নম্বরে কারচুপি? – প্রয়োজনে সিআইডির সাহায্য।

এ করোনা পরিস্থিতি এতটা সংকট সময় হওয়ার আগেই হয়ে গেছিল মাধ্যমিকের প্রত্যেকটি বিষয়ের পরীক্ষা। তারপরে ফল প্রকাশ নিয়ে হয়েছিল বিস্তর জলঘোলা। অবশেষে গত ১৫ই জুলাই মাধ্যমিকের ফল বেরিয়েছে। অন্যান্য বারের মত , এই চলতি বছরে সেদিনই পরীক্ষার্থীরা মার্কশিট হাতে পাননি। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের দেওয়া ওয়েবসাইট থেকেই পরীক্ষার্থীরা প্রতিটি বিষয়ের নম্বর এবং মোট নম্বর জানতে পেরেছিল। এক সপ্তাহ পরে স্কুল থেকে মার্কশিট দেওয়া হয়।

প্রতীকী চিত্র


এবার গরমিল টা এখানেই। পরীক্ষার্থীর একাংশের দাবি ওয়েবসাইট এ যে নম্বর ছিল, হাতে মার্কশীট পাওয়ার পর দেখা গেল বেশ কিছু বিষয়ে নম্বর বদলে গিয়েছে। সঙ্গে সঙ্গেই পর্ষদ কর্তৃপক্ষকে সব জানানো হয়।
যদিও পর্ষদ কর্তৃপক্ষ নম্বরের গরমিলের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন, তারা জানিয়েছেন কোথাও একটা কারচুপি হয়েছে, তারা অবশ্যই কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। প্রয়োজনে সিআইডির সাহায্য নেওয়া হবে।


এই করোনা আবহে মাধ্যমিকের ফল ঘোষণার পরেও মার্কশীট নম্বর বিভ্রাট কে নিয়ে তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন তারা সমস্ত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন, মার্কশীটের যার নাম্বার এসেছে সেই নম্বরটি ঠিক। তাদের ডেটাবেজ তথ্যভাণ্ডারে যে নম্বর আছে মার্কশিটে সেই নম্বরই উল্লেখ করা হয়েছে।

Covid

Co