যশোরেশ্বরী মন্দিরের পাশে পুণ্যার্থীদের জন্য ভারত নির্মিত কমিউনিটি হল তৈরী করার কথা ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

এবার বিদেশের মাটিতে দেশীয় ভাবনা। , এক নজির বিহীন ঘটনার স্বাক্ষী থাকল ভারত বাংলাদেশ। আগামী দিনে বাংলাদেশে ভারত সরকারের তরফে কমিউনিটি হল নির্মাণের কথা ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। উল্যেখ , করোনা পরিস্থিতিতে শনিবার দু দিনের জন্য বাংলাদেশ সফরে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সফর তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার ঈশ্বরীপুর গ্রামের শতাব্দী প্রাচীন যশোরেশ্বরী কালী মন্দির। এদিন সকাল বেলা ডালা হাতে পূজা দিতে যান তিনি ।পুজোর সময় প্রধানমন্ত্রী মোদি নিজে হাতে মায়ের মাথায় মুকুট পরান। রুপোর তৈরী মুকুটটি সোনার আস্তরণে মোড়া। পুজো দিয়ে বেরিয়েই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশের এই প্রসিদ্ধ যশোরেশ্বরী কালী মন্দির লাগোয়া প্রাঙ্গনে আগামী দিনে ভারত সরকারের তরফে কমিউনিটি হল নির্মাণের কথা ঘোষণা করেন। তিনি আরো বলেন , “আমি শুনেছি মেলায় এই স্থানে বহু ভক্তদের জমায়েত হয়। এপার এবং ওপার বাংলা থেকে বিশাল সংখ্যক মানুষ এই শক্তিপীঠে আসেন। তাই এখানে একটা কমিউনিটি হলের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সেই কথা মাথায় রেখেই একটি মাল্টিপারপাস কমিউনিটি হল তৈরী করা হবে। তাঁর কথায়, কালী পুজোর সময় ছাড়াও সামাজিক, ধার্মিক কোনও কাজে কমিউনিটি হলটি ব্যবহার করতে পারবেন এলাকার মানুষ।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের যশোরেশ্বরী মন্দির সতী মায়ের ৫১ পীঠের অন্যতম। প্রচলিত বিশ্বাস অনুসারে, এখানে সতীর হাতের তালু পড়েছিল। কিংবদন্তি অনুযায়ী, মহারাজা প্রতাপাদিত্যের সেনাপতি জঙ্গলের মধ্যে একটি আলোকিত রশ্মি দেখতে পেয়েছিলেন। খুঁজতে গিয়ে একটি মানুষের হাতের তালুর আকারে খোদাই করা পাথরের টুকরো পেয়েছিলেন। সেই থেকেই মহারাজা প্রতাপাদিত্য যশোরেশ্বরী কালী মন্দির তৈরি করে কালী পূজা শুরু করেছিলেন। এবার সেই সত্যি পিঠের পাশের পুণ্যার্থীদের জন্য স্থান পেতে চলছে ভারত সরকার নির্মিত কমিউনিটি হল । বাংলাদেশ

Covid

Co