কালকের মধ্যে বকেয়া ফী জমা না দিলে করতে দেয়া হবেনা ক্লাস , তবে কি স্কুলছুট হতে চলেছে বহু পড়ুয়া ?

গত মার্চ মাস থেকে রাজ্য জুড়ে লকডাউন হয়ে যাওয়ার পর থেকে রাজ্যের সরকারি এবং বেসরকারি স্কুল গুলি শুরু করেছিলো অনলাইন ক্লাস পরিষেবা। এরপর আনলক পর্বে প্রায় সবকিছুর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হলেও , রাজ্য শিক্ষা দফতর তরফে স্পষ্টতই জানিয়ে দেয়া হয়, চলতি বছরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কোনো সম্ভনাই নেই।
বিতর্ক শুরু হয় বেসরকারি স্কুল গুলির ফী নিয়ে। লকডাউন চলাকালীন সময়েই বেসরকারি স্কুল গুলো একটা নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেয় ,স্কুল বন্ধ থাকলেও সমস্ত রকমের ফী অভিভাবকদের জমা করতে হবে নির্দিষ্ট তারিখের মধ্যে। শুধু তাই নয়,। কিছু কিছু স্কুল আবার জানায়, ফি জমা না দেওয়া হলে পড়ুয়াদের অনলাইন ক্লাস করতে দেওয়া হবে না। এরপর এই বিতর্কের জল গড়ায় বহুদূর। পড়ুয়াদের অভিভাবকেরা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়।
হাইকোর্ট উভয় পক্কের কথা মাথায় রেখে জানিয়েছিল , স্কুল কতৃপক্ষকে ফী কমাতে হবে। পাশাপাশি , একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অভিভাবকের বকেয়া ফী জমা দিতে হবে। আর সেই বকেয়া ফী জমা দেয়ার শেষ দিন হলো কাল অর্থাৎ মঙ্গলবার। বেসরকারি স্কুলের একাংশ জানিয়েছে , এখনো অবধি বহু পড়ুয়ার অভিভাবক ফী জমা দেয়নি। বর্তমান লকডাউন পরিস্থিতিতে বহু পরিবারের হাতেই কাজ নেই , নেই কোনো সহায় সম্বল। আর এই পরিস্থিতিতে সন্তানের ভবিষৎতের কথা ভেবে দিশেহারা বহু অভিভাবক। তবে আসার আলো দেখাচ্ছে বেশ কিছু বেসরকারি স্কুল। তারা ইতিমধ্যেই জানিয়েছে , যারা এখনো পর্যন্ত ফী দেয়নি তাদের সন্তানদের এখনই ক্লাস থেকে বের করা হবেনা। স্কুল গুলি অভিভাবকদের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছে আর কিছুদিনের মধ্যে যেন তারা ফী জমা দিয়ে দেন তার জন্য। এরপরেও যারা ফী জমা দিতে পারবেন না তাদের আবেদন জানাতে বলা হয়েছে।

Covid

Co