বিজেপির পতাকা হাতে নিয়ে কি বললেন শুভেন্দু ? পড়ুন-

সব জল্পনার শেষ করে বিজেপিতে যোগদান করলেন শুভেন্দু অধিকারী। ২০২১ বিধানসভা ভোটের আগে শুভেন্দু অধিকারীর এই দলবদল রাজ্য রাজনীতিতে নতুন করে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে তা বলা বাহুল্য। অমিত শাহের হাত থেকে বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নেওয়ার পর তিনি রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে বেশকিছু কথা বলেছেন।কখনো শুভেন্দুর তৃণমূলের প্রতি অভিমানে কথা বলেছেন বা কখনো কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে তৃণমূলকে।
▶ প্রথমেই শুভেন্দুবাবু মেদিনীপুর কলিজিয়েট মাঠ সম্পর্কে বলেন অনেক ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী হয়ে আছে এই মাঠটি।
▶ এরপরেই তিনি একে একে আঘাত শানাতে থাকেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে। তিনি স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, তৃণমূলে একটি ধরণের ব্যক্তিকেন্দ্রিকতা আছে, যার জন্য আত্মসম্মানে ঘা লাগে। শুধু তাই নয়,তিনি প্রকাশ্যেই বলে ওঠেন, যখন তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তখন তার তৎকালীন দলের কেউ তার পাশে থাকেনি দেখা করেনি কিন্তু অমিত শাহ তার ওনার সাথে দেখা করেছিলেন।
▶ শুভেন্দু বাবু দাবি করেন, উত্তরপ্রদেশে বিশাল জয়ের পর দিল্লিতে ওনার সঙ্গে অমিত শাহের সাক্ষাৎ হয়। কিন্তু ওনাকে কেউ কখনো বিজেপিতে যোগদান করতে বলেননি। শুধুমাত্র মুকুল রায় শুভেন্দু বাবুকে বলেছিলেন আত্মসম্মান হারিয়ে দলে না থাকতে।
▶ এতদিন যাবৎ বারংবার শুভেন্দু বাবুকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে তিনি একদা বিজেপি হাটাও বলে স্লোগান তুলেছিলেন , এরও কড়া ভাষায় উত্তর দেন তিনি। তিনি বলেন এতদিন তিনি নিষ্ঠার সহিত তৃণমূল করেছেন আর এবার তিনি নিষ্ঠার সাথে বিজেপি করবেন।তিনি জোর গলায় বলে ওঠেন, “তোলাবাজ ভাইপো হাঁটাও “। পাশাপাশি তিনি বলেন, মাতব্বরি করার জন্য তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না, যদি শীর্ষ নেতৃত্ব বলে রাস্তায় নেমে দেওয়াল লিখতে তিনি তাই করবেন।
▶ এর সাথে তিনি রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, পশ্চিমবঙ্গে মোদীসরকার না এলে ক্ষতি হবে রাজ্যের। রাজ্যের অর্থনীতি , চাকরির অবস্থা শেষ আর এই অবস্থার জন্য দায়ী একমাত্র তৃণমূল সরকার।
শেষে তিনি স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, নিজের মা এবং দেশমাতা ছাড়া কেউ তার মা নন। অন্য কাউকে তিনি মা বলতে পারবেন না।

Covid

Co